"এইচ.এস.সির ফলাফল দেখে নিন" (ক্লিক)
বাংলাদেশের বৃহত্তম শিক্ষামূলক কমিউনিটিতে
আপনাকে স্বাগতম!
close
close

অনুচ্ছেদ রচনা শৈশবস্মৃতি

শৈশব মানবজীবনের শ্রেষ্ঠ সময়। এ সময়ের আনন্দ-বেদনা সবই হয় শর্তহীন, অকৃত্রিম। শৈশবস্মৃতি তাই সবার কাছেই মধুময়। শৈশবের স্মৃতি রােমন্থন করে আবেগতাড়িত হতে ভালােবাসে সকলেই। আমার শৈশব জীবনের স্মৃতিও অত্যন্ত মনােহর। আমার জন্ম যমুনা নদীতীরে ছায়াঢাকা এক গ্রামে। শৈশব কেটেছে গ্রামীণ উন্মুক্ত পরিবেশে। গ্রামের অবারিত মাঠ, নদীতীর, বিদ্যালয় ইত্যাদিতে জড়িয়ে আছে কত স্মৃতি। সেগুলাে এখনাে আমার স্মৃতিতে উজ্জ্বল। বর্ষাকালে বাড়ির পেছনের বিশাল ফসলের মাঠটি পরিণত হতাে দিক-চিহ্নহীন বিলে। ছােট্ ডিঙিতে চড়ে তার বুকে ভেসে ভেসে মাছ ধরা আর শাপলা তােলার স্মৃতি কখনাে ভােলার নয়। গ্রীষ্মে। আম-জাম-কাঁঠালের গাছগুলােই যেন হয়ে উঠত আমাদের ঘরবাড়ি। শীতকালে মায়ের গা ঘেঁষে গরম গরম পিঠা খাওয়ার অভিজ্ঞতার সত্যিই কোনাে তুলনা নেই। গ্রামের সেই প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সমস্বরে নামতা পড়া, খেলার মাঠে সারা বিকেল দৌড়ঝাপ বা বাড়ির পুকুরে ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাপাদাপি করে শৈশব কেটেছে আমার। বিভিন্ন উৎসবে আনন্দ যেন কোনাে বাঁধ মানত না। তবে কিছু বেদনার স্মৃতিও রয়েছে। দুষ্টুমির জন্য হেডস্যারের কড়া বকুনি বা বাবার হাতের মারও খেয়েছি বহুবার। কিন্তু আজকের দিনে এসে সেই স্মৃতিগুলােকেই বড় মধুর মনে হয়। কেবল ইচ্ছে হয়, আহা, যদি একটিবার ফিরে যেতে পারতাম সেই সময়ে! কিন্তু তা তাে আর হওয়ার নয়। স্মৃতিগুলােই এখন আমার একমাত্র সম্বল। সেগুলােকে রােমন্থন করে সেই দুরন্ত শৈশবের কল্পনায় হারিয়ে যাই প্রায়ই ।

আপনার মন্তব্যটি করুন (0)


আপনার মতামত দিন, অন্যদের মতামত দেখুন