বাংলাদেশের বৃহত্তম শিক্ষামূলক কমিউনিটিতে আপনাকে স্বাগতম!

অতৎসম শব্দের বানানের সহজ পাঁচটি নিয়ম

অতৎসম শব্দের বানানের সহজ পাঁচটি নিয়ম
বাংলা বানানের নিয়ম

প্রথমে আমরা নিচের বাক্যটি সহজেই মনে রাখব। যেখানে ক্রিয়াপদ ব্যাতিত প্রত্যেকটি শব্দই একেকটি উদাহরণ। আর এই উদাহরনই সহজে পাঁচটি নিয়ম মনে রাখতে সাহায্য করবে। অন্যান্য আরো শব্দের বানানের নিয়ম পেতে পোষ্টের নিচে লক্ষ্য করো। 

ছোট্ট একটা প্রশ্ন অনেকের মনেই আসতে পারে, ভাইয়া ক্রিয়াপদ কি? 
ক্রিয়াপদঃ বাক্যের অন্তর্গত প্রত্যেকটি শব্দই একেকটি পদ। আর যে শব্দটি কোনো কাজ করা নির্দেশ করে সেটিই ক্রিয়াপদ। 

তো চলো এখন আমরা নিয়ম গুলোতে যাই- 

অতৎসম শব্দের বানানের পাঁচটি সহজ নিয়ম


ট্রিকসঃ আরবি বইটির ছবি সোনালির দাদিকে দাও।

প্রথম নিয়মঃ কোনো ভাষা বা জাতিবাচকতা বুঝাতে "ই-কার" ব্যবহার করা হয়।
উদাহরণঃ আরবি, ইতালিয়ান ইত্যাদি।

দ্বিতীয় নিয়মঃ শব্দের পদাশ্রিত নির্দেশক এ সর্বদা "ই-কার" ব্যবহার করা হয়। 
উদাহরণঃ বইটি, কলমটি ইত্যাদি।

তৃতীয় নিয়মঃ বিদেশি শব্দে সর্বদা "ই-কার" ব্যবহার করা হয়।
উদাহরণঃ ছবি, আলমারি ইত্যাদি।

চতুর্থ নিয়মঃ আলি প্রত্যায়ন্ত শব্দে সর্বদা "ই-কার" ব্যবহার করা হয়। 
উদাহরণঃ সোনালি, মিতালি ইত্যাদি।

পঞ্চম নিয়মঃ স্ত্রীবাচকতা বুঝাতে সর্বদা "ই-কার" ব্যবহার করা হয়। 
উদাহরণঃ দাদি, নানি ইত্যাদি।

তৎসম শব্দের বানানের সহজ পাঁচটি নিয়ম দেখে নাও এখানে

Post a Comment

0 Comments Replies Comment