বাংলাদেশের বৃহত্তম শিক্ষামূলক কমিউনিটিতে আপনাকে স্বাগতম!

সুস্বাস্হ্য অনুচ্ছেদ রচনা

সুস্বাস্থ্য বলতে সুস্থ দেহে বুঝায় যে দেহ সব ধরনের ব্যাধি থেকে মুক্ত তাকেন সুস্বাস্থ্য বলা হয়। কিছু নিয়ম-কানুন অনুসরণ করে আমরা সুস্বাস্থ্য বর্জায় রাখতে পারি। সুস্বাস্থ্য বজায় রাখতে একজন মানুষকে খুব সকালে ওঠা উচিত এবং কিছু শারীরিক ব্যায়াম গ্রহণ করা উচিত। তাছাড়া, শাকসবজি খাওয়া, বিশুদ্ধ পানি পান করা এবং সুষম খাবার গ্রহণ করা হচ্ছে সুস্বাস্থ্য সংরক্ষণের পূর্বশর্ত। আমি একজন শিক্ষার্থী এবং আমি সর্বদা স্বাস্থ্যনীতি অনুসরণ করতে চেষ্টা করি। কারণ, আমি জানি যে, স্বাস্থ্যই সম্পদ এবং স্বাস্থ্যই হচ্ছে সকল সুখের মূল। সুষম খাবার সুস্বাস্থ্য সংরক্ষণের জন্য অত্যাবশ্যক। যে খাবারে কার্বোহাইড্রেড, ফ্যাট, প্রোটিন, ভিটামিন এবং খনিজ থাকে তাকে সুষম খাবার বলা হয়। মানুষ যদি সুষম খাবার গ্রহণ না করে, তবে তারা প্রায়ই বিভিন্ন ধরনের ব্যাধিতে ভােগে। সুতরাং, আমি সর্বদা সুষম খাবার খেতে চেষ্টা করি। সুস্বাস্থ্য সংরক্ষণের গুরুত্ব ভাষায় প্রকাশ করা যায় না। একটি প্রবাদ বাক্য আছে যে, সুস্থ মন সুস্থ দেহের উপর নির্ভর করে। একজন স্বাস্থ্যবান মানুষ সত্যিই ভাগ্যবান কারণ সে তার কর্তব্যগুলো উপযুক্ত রূপে সম্পাদন করতে পারে এবং জীবনে সফল হতে পারে। সুতরাং, স্বাস্থ্যপদ, সম্পদশালী, আরামদায়ক এবং ব্যাধি মুক্ত জীবন। পরিচালনা করতে আমাদের সুস্বাস্থ্য বজায় রাখা উচিত।

Post a Comment

0 Comments Replies Comment